'বিডি ফ্রি প্রেস' বাংলাদেশের প্রথম সংবাদ সংযোগকারী ব্লগ

মূলপাতা বাংলাদেশ

কোভিড: রোববার থেকে খুলবে সব রপ্তানিমুখী শিল্প কারখানা


প্রকাশের সময় :৩০ জুলাই, ২০২১ ৮:১৪ : অপরাহ্ণ

গার্মেন্টসবাংলাদেশে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে যে ‘কঠোর লকডাউন’ চলমান রয়েছে; তবে আগামী রোববার (১ আগস্ট) থেকে রপ্তানিমুখী সকল কলকারখানা খোলার অনুমতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একটি প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে যে ১লা অগাস্ট থেকে রপ্তানিমুখী শিল্প ও কল-কারখানা চলমান ‘বিধি-নিষেধের আওতা বহির্ভূত’ থাকবে।

এর আগে দেশে মহামারি পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন দেয় সরকার।

ঈদের পর থেকে কঠোরভাবে চালু হওয়া এ লকডাউনের আওতায় বন্ধ রাখা হয় শিল্প কারখানা। এরপর কারখানা খুলে দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানান ব্যবসায়ী নেতারা। তারপরই এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হলো।

পোশাকশিল্পের সংগঠন বিজিএমইএ, বিকেএমইএ-সহ দেশে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই-এর নেতৃত্ব কারখানা চালুর অনুমতি দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।

এই বিষয়ে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, করোনায় বিধিনিষেধের আওতায় সব শিল্প-কারখানা বন্ধ রাখায় অর্থনৈতিক কার্যক্রমের প্রাণশক্তি উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

ফলে সাপ্লাই চেইন (সরবরাহ ব্যবস্থা) সম্পূর্ণভাবে ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এতে উৎপাদন থেকে ভোক্তা পর্যন্ত প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

রফতানি অর্ডার বাতিল হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে আমরা।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট বাংলাদেশে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে গত ২৩শে জুলাই ভোর ৬টা থেকে ৫ই অগাস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত সময়ের জন্য নতুন করে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিল।

এর আগে বাংলাদেশ করোনাভাইরাসের উর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ঠেকাতে পহেলা জুলাই থেকে আরোপ করা এক সপ্তাহের ‘কঠোর লকডাউন’ পরে আরেক সপ্তাহ বাড়িয়ে ১৪ই জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত করা হয়েছিল।

এরপর ঈদুল আযহা উদযাপনের জন্য ১৪ই জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩শে জুলাই ভোর ৬টা পর্যন্ত সব ধরনের বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছিল।


মতামত দিন

আরও খবর